Home / জেলার খবর / ব্যক্তিগত স্বার্থ হাসিলের জন্য প্রিয়া সাহা এমন বক্তব্য দিতে পারেন: গণপূর্তমন্ত্রী

ব্যক্তিগত স্বার্থ হাসিলের জন্য প্রিয়া সাহা এমন বক্তব্য দিতে পারেন: গণপূর্তমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা প্রতিদিন.কম : গৃহায়ন ও গনপূর্তমন্ত্রী শ.ম. রেজাউল করিম বলেছেন, বাংলাদেশ একটি সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ। এখানে হিন্দু মুসলমান এক হয়ে বসবাস করেন। মার্কিন রাষ্ট্রপ্রধানের কাছে বাংলাদেশের সাম্প্রদায়িক সহিংসতা সম্পর্কে প্রিয়া সাহার দেয়া বক্তব্য সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন।

তিনি আরও বলেন, ব্যক্তিগত স্বার্থ হাসিলের জন্য প্রিয়া সাহা এমন বক্তব্য প্রদান করতে পারেন বলে আমার ধারণা।

শনিবার নাজিরপুরের নিজ বাসভবনে সাংবাদিকদের কাছে প্রিয়া সাহার বক্তব্যের প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে এসব কথা বলেন গৃহায়ন ও গনপূর্তমন্ত্রী।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক প্রিয়া সাহা পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলার মাটিভাঙ্গা ইউনয়নের চরবানিয়ারী গ্রামের বাসিন্দা। ওই একই ইউনিয়নের বাসিন্দা আ’লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির আইনবিষয়ক সম্পাদক ও বর্তমান সরকারের গৃহায়ন ও গনপূর্ত মন্ত্রী শ.ম. রেজাউল করিম।

নিজের এলাকার সংখ্যালঘুদের সঙ্গে সহাবস্থান বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে গত ১৫ বছরে একজন হিন্দুও নিখোঁজ হওয়ার খবর আমার জানা নেই। বিশেষ করে আমার নির্বাচনী এলাকা পিরোজপুর-১ এর হিন্দু-মুসলিম সকলে ভ্রাতৃত্বের বন্ধনে আবদ্ধ। এখানে কোনো ধরনের অসাম্প্রদায়িক কার্যকলাপ পরিলক্ষিত হয়নি। পিরোজপুরের নাজিরপুরসহ এ জেলার মুসলমান, হিন্দুসহ অন্যান্য ধর্মাবলম্বীরা শান্তিপূর্ণ সহাবস্থান করছেন। যা একটি অনন্য দৃষ্টান্তও স্থাপন করেছে।

শ. ম. রেজাউল করিম যোগ করেন, নাজিরপুর বা পিরোজপুর জেলার কোনো হিন্দু বা অন্য কোনো সম্প্রদায়ের লোক গুম বা নিখোঁজ হয়নি। প্রিয়া সাহার বক্তব্য অসৎ উদ্দেশ্যে প্রণোদিত এবং সাম্প্রদায়িক সম্পর্ক নষ্টের উসকানিমূলক অপচেষ্টা ছাড়া আর কিছুই নয়।

মার্কিন প্রেসিডেন্টের কাছে গিয়ে প্রিয়া সাহার এমন নালিশ চরম অন্যায় ও রাষ্ট্রদ্রোহিতার শামিল বলে মত দেন মন্ত্রী শ. ম. রেজাউল করিম।

প্রসঙ্গত গত বুধবার মার্কিন টিভি চ্যানেল এবিসি নেটওয়ার্কের চ্যানেল এবিসি ফোর ইউটাহ প্রকাশ করে। এর পরই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে সেটি।

সেখানে দেখা গেছে হোয়াইট হাউজে ১৬টি দেশের ধর্মীয় নিপীড়নের শিকার ২৭ ব্যক্তির সঙ্গে বৈঠক করছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক প্রিয়া সাহাও সে বৈঠকে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে কথা বলার সুযোগ পান।

প্রিয়া সাহা মার্কিন প্রেসিডেন্টকে বলেন, ‘আমি বাংলাদেশ থেকে এসেছি। বাংলাদেশে ৩ কোটি ৭০ লাখ হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিষ্টান নিখোঁজ রয়েছেন। দয়া করে আমাদের লোকজনকে সহায়তা করুন। আমরা আমাদের দেশে থাকতে চাই।’

এরপর তিনি বলেন, ‘এখন সেখানে ১ কোটি ৮০ লাখ সংখ্যালঘু রয়েছে। আমরা আমাদের বাড়িঘর খুইয়েছি। তারা আমাদের বাড়িঘর পুড়িয়ে দিয়েছে, তারা আমাদের ভূমি দখল করে নিয়েছে। কিন্তু এখন পর্যন্ত কোনো বিচার পাইনি।’

ভিডিওতে দেখা গেছে, এক পর্যায়ে ট্রাম্প নিজেই সহানুভূতির সঙ্গে এই নারীর সঙ্গে হাত মেলান।

এ সময় প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ওই নারীকে প্রশ্ন করেন, ‘কারা জমি দখল করেছে, করা বাড়ি-ঘর দখল করেছে?’

ট্রাম্পের প্রশ্নের উত্তরে ওই নারী বলেন, ‘তারা মুসলিম মৌলবাদি গ্রুপ এবং তারা সব সময় রাজনৈতিক আশ্রয় পায়। সব সময়ই পায়।’

ঢাকা প্রতিদিন.কম/এআর

Loading...

Check Also

পেছালো এসএসসি পরীক্ষা

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা প্রতিদিন.কম : এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা পেছানো হয়েছে। পূর্ব নির্ধারিত ১ ফেব্রুয়ারির ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *