Home / অপরাধ / ধর্ষণের মামলা করায় অবরুদ্ধ ভুক্তভোগী পরিবার

ধর্ষণের মামলা করায় অবরুদ্ধ ভুক্তভোগী পরিবার

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা প্রতিদিন.কম : প্রতিবন্ধী স্বামী, দুই প্রতিবন্ধী মেয়ে ও অন্ধ জামাতাকে নিয়ে নিজ বাড়িঘরে আটকা পড়েছেন দরিদ্র গৃহবধূ রোকেয়া বেগম। তার মেয়ের ধর্ষণের মামলায় গ্রেফতার হওয়ার পর আসামি পক্ষের লোকজন বাড়ির পাশে সীমানা প্রাচীর দিয়ে রোকেয়াদের পথ আটকে দিয়েছে।

গত এক সপ্তাহ ধরে তারা বাড়ি থেকে বের হতে পারছেন না। অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছেন। স্থানীয় ইউপি সদস্য শহিদুল ইসলাম বিষয়টি নিষ্পত্তি করার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়েছেন বলে তিনি জানান। সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে এসে এ অভিযোগ করেন ওই গৃহবধূ।

তিনি বলেন, গত ৩০ জানুয়ারি তার প্রতিবন্ধী মেয়েকে ধর্ষণ করে তার প্রতিবেশী আকরম সরদার (৬০)। একপর্যায়ে তার মেয়ে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়লে গর্ভপাত ঘটানোর জন্য আকরম কলারোয়ায় তার মেয়েকে ফেরদৌসি নামে একজনের বাড়িতে নিয়ে যায়। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে তাকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতাল ও পরে খুলনায় ভর্তি করা হয়।

এরই মধ্যে আকরমের বিরুদ্ধে সাতক্ষীরা সদর থানায় একটি মামলা করেন মেয়ের মা। এ মামলায় আসামি করা হয় আকরম, তার স্ত্রী মাসকুরা, মেয়ে ফেরদৌসী ও জামাতা রেজাউলকে। পরে তারা উচ্চ আদালত থেকে জামিন নেন। গত এক সপ্তাহ আগে আকরম সাতক্ষীরার একটি আদালতে হাজিরা দিতে এলে আদালত তাকে জেলহাজতে পাঠায়।

গৃহবধূ জানান, আকরম জেলে যাওয়ার পর তারা তাদের নিজ বাড়ির চারপাশে প্রাচীর দিয়েছে। যে গলিপথ দিয়ে তাদের পরিবার এতোদিন যাতায়াত করতো সেটাও বেড়া দিয়ে আটকে দিয়েছে তারা। ফলে গত এক সপ্তাহ ধরে এই প্রতিবন্ধী পরিবারের ছয়জন সদস্য আটকা পড়েছেন নিজ বাড়িতে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বাঁশদহা ইউপি সদস্য শহিদুল ইসলাম জানান, আমি চেষ্টা করেছি পথ উন্মুক্ত করে দেয়ার। কিন্তু ব্যর্থ হয়েছি। চেয়ারম্যানের সঙ্গে কথা বলে ফের পথ উন্মুক্ত করে দেয়ার ব্যবস্থা করবো।

ঢাকা প্রতিদিন.কম/এআর

Loading...

Check Also

ট্রাকভর্তি পেঁয়াজ জব্দ, আটক ২

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা প্রতিদিন.কম : ভারত থেকে অবৈধভাবে আনার অভিযোগে সিলেট-তামাবিল সড়কের খাদিম বাইপাস এলাকায় ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *