Home / জেলার খবর / আট মাস বিদ্যুৎহীন ভূঞাপুর ডাকঘর

আট মাস বিদ্যুৎহীন ভূঞাপুর ডাকঘর

ফরমান শেখ, ভূঞাপুর থেকে:-
ডিজিটাল পদ্ধতির মধ্যে যে সকল দপ্তরের কার্যক্রম নিয়ে আমরা গর্ভ করি তা থেকে বাদ পরে না পোস্ট অফিস। টিভি খুললেই দেখা যায় নগদ অর্থ লেনদেন, ডিপিএস, পিপোজিটসহ নানা অর্থ লেনদেনের বাহারি বিজ্ঞাপন। কিন্তু এসব প্রতিষ্ঠানে সেবার মান নিয়ে রয়েছে নানা অভিযোগ। এর মধ্যে নানা সমস্যায় জর্জড়িত টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর উপজেলা ডাকঘর। এ অফিসের আওতায় রয়েছে ইউনিয়ন পর্যায়ের আরো ৯টি ডাকঘর।
দেখা যায়, এ পোস্ট অফিসে দীর্ঘ ৮ মাস যাবৎ বিদ্যুৎ নেই। দ্বিতলা পুরো ভবনটি থাকে অন্ধকার ফ্যান বিহীন। ছোট একটা সোলার সিস্টেম থাকলে সেটি একটির বেশি বাতি জ্বলে না। ভবনে সেলিং ফ্যান ঝুলানো আছে কিন্তু সবই নষ্ট।
এদিকে সামন্য বৃষ্টি হলেই ভবনের ছাদ দিয়ে পানি পড়ে। ভবনের বিভিন্ন স্থানে আস্তর খসে পরেছে। দরজা জানালাগুলোর বেশিরভাগই ভাঙা। মেইন গেট ও করাপ্সেবল গেটের অবস্থাও নাজুক। এ অবস্থায় গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্রাদি ও প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি রয়েছে অরক্ষিত। যা যে কোনো সময় দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। অন্যদিকে বাহিরে রাখা চিটির বক্সটিও ভাঙা। যে কেও ইচ্ছে করলে ভাঙা দিয়ে চিঠি বের করে নিয়ে যেতে পারে।
পোস্ট মাস্টার সাদিয়া সুলতানা বলেন, নির্মাণে ত্রুটি থাকায় বিল্ডিংয়ের ছাদ দিয়ে পানি পড়ে, সমস্ত ওয়ারিং নষ্ট হয়ে গেছে। ফলে বড় ধরণের দুর্ঘটনার ভয়ে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে রাখা হয়েছে। বিদ্যুতিক যে সকল যন্ত্রপাতি আছে তার বেশির ভাগ নষ্ট। এ সব বিষয়ে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে লিখিতভাবে জানানো হলেও কোনো ফলপ্রসূ হয়নি। তিনি আরো বলেন, সম্প্রতি শুধু চিটি লেনদেন কম হলেও অন্যান্য কাজ বেড়েছে। আর্থিক লেনদেন বেড়েছে কয়েকগুণ। ফলে মানুষ এখন পোস্ট অফিসে নানা কাজেই এসে ভীর করে। এ ছাড়া অফিসের সব দরজা জানালা ভাঙা। বাহিরের চিঠির বক্সের ডাকনা ভাঙা অনায়েসে যে কেউ সেখান থেকে গুরুত্বপূর্ণ চিঠি নিয়ে যেতে পারবে।

Loading...

Check Also

ধেয়ে আসছে বন্যার পানি

  শরীয়তপুর সংবাদদাতা শরীয়তপুরে ধেয়ে আসছে বন্যার পানি। দ্রুতগতিতে তলিয়ে যাচ্ছে নিম্নাঞ্চল। জাজিরা, নড়িয়া ও ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *