Home / জেলার খবর / শ্রীপুরে সেতুর নিচে বাঁধ

শ্রীপুরে সেতুর নিচে বাঁধ

সোহেল রানা, শ্রীপুর থেকে:-
গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার বরমী ইউনিয়নের বরকুল গ্রামে সেতুর নিচে বাঁধ দিয়ে মাছ চাষ চেষ্টার অভিযোগ করেছেন বরকুল গ্রামের কৃষকেরা। এতে গুরতা ও টুলি বিলের শতাধিক একর আবাদযোগ্য জমি ফসল উৎপাদন থেকে বঞ্চিত হবে কৃষকরা। তারা মৎস্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের কাছে অভিযোগ জানিয়ে জেলা মৎস্য কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন দপ্তরে অনুলিপি দিয়েছেন। কৃষক জুলহাস উদ্দিন বলেন, প্রভাবশালীরা বিলের মধ্যে লাল নিশান উড়িয়ে সীমানা চিহ্নিত করেছে। এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে মৎস্য বিভাগে অভিযোগ দিয়ে বাধা প্রদান করা হয়েছে। তারপরও বাঁধ নির্মাণকাজ থামছে না। এ বিলে বাঁধ দিয়ে মাছ চাষ হলে বিলের পাড় ভেঙে যাবে। আশপাশে ব্যক্তিগত পর্যায়ে চাষ করা বিলের পাড় ভেঙে কৃষকরা ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন। বরকুল গ্রামের পল্লী চিকিৎসক নূরুল ইসলাম বলেন, বিলের জল প্রবাহ স্বভাবিক রাখতে কোটি টাকা ব্যয়ে সেতু নির্মাণ করা হয়েছে।
বরকুল গ্রামের কৃষক আব্দুল জব্বার জানান, কোটি কোটি টাকা ব্যয়ে বরমী-গফরগাঁও আঞ্চলিক সড়কে গুরতা বিলের ওপর সেতু নির্মাণ করা হয়েছে। বিলের মধ্যে বাঁধ দিয়ে মাছ চাষ করা হলে কয়েকজন লাভবান হবে। ক্ষতিগ্রস্ত হবে কমপক্ষে দুই হাজার কৃষক। স্থানীয় কয়েকজন প্রভাবশালী হাতেগোনা কয়েকজন জমির মালিকের কাছ থেকে অনুমতি নেয়। তারা ইতোমধ্যে সেতুর নিচে বাঁধ দেয়ার উদ্দেশে পাকা নর্দমা নির্মাণ করছে। কৃষক শামসুল হক বলেন, এ দুটি বিল থেকে ছয় মাস ফসল উৎপাদন হয়। বাকি ৬ মাস গবাদি পশুর খাদ্য ও দেশীয় প্রজাতির প্রাকৃতিক মাছ আহরণ করে স্থানীয় সাধারণ কৃষকরা জীবিকানির্বাহ করেন। কিন্তু বাঁধ দিয়ে মাছ চাষ করা হলে কৃষকদের বাজার থেকে চাল কিনে খেতে হবে। গবাদিপশু খাদ্যের অভাবে মারা যাবে। এ ব্যাপারে বরকুল গ্রামের অভিযুক্ত নূরুজ্জামান বলেন, বিলের জমির মালিকদের অনুমতি নিয়ে বিলে মাছ চাষের প্রস্তুতি চলছে। ৫/৬ জন মালিক মাছ চাষে বাধা দিচ্ছেন। তারাই বিভিন্ন দপ্তরে মিথ্যা অভিযোগ করেছেন। গাজীপুর জেলা মৎস্য কর্মকর্তা জিয়া হায়দার চৌধুরী জানান, সেতুর নিচে বাঁধ দিয়ে মাছ চাষ চেষ্টার অভিযোগ তিনি পাননি। এ রকম হলে বিষয়টি খতিয়ে দেখবেন এবং দরকার হলে স্থানীয় প্রশাসনকে সাথে নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।

Loading...

Check Also

আমতলীতে ১৪ মামলার আসামি গ্রেফতার

বরগুনা প্রতিনিধি বরগুনার আমতলী উপজেলা থেকে ১৪টি মাদক মামলার আসামি মো. কাওছার নামের একজনকে অস্ত্র-গুলি ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *