Home / খেলাধুলা / বার্সেলোনাকে ৪-০তে বিধ্বস্ত করে ফাইনালে লিভারপুল

বার্সেলোনাকে ৪-০তে বিধ্বস্ত করে ফাইনালে লিভারপুল

ক্রীড়া ডেস্ক

ভাগ্য দেবতা যেন নিজে থেকেই মেসির হাতটা কপালে তুলে দিয়ে বোঝাতে চাইলেন, এই কষ্টটা কপালেই লেখা ছিল! আসলেই তো। নয়তো বিশ্বসেরা বার্সেলোনা কেন প্রথম লেগে ৩-০ গোলে এগিয়ে থাকার পর দ্বিতীয় লেগে ৪-০ গোলে বিধ্বস্ত হবে। বিশ্বসেরা মেসি-সুয়ারেজরা কেন প্রতিপক্ষের খেলোয়াড়দের একের পর এক গোল উদযাপনের নীরব স্বাক্ষী হবে, নিজেরা একটাও করতে পারবে না!

ফুটবলে রূপকথার গল্প, অবিশ্বাস্য প্রত্যাবর্তনের ঘটনা হরহামেশাই ঘটে। তবে কাল লিভারপুলের মাঠ অ্যানফিল্ডে যা ঘটল, সেটা একটু বেশিই বিস্ময়কর। প্রথম লেগে বার্সার মাঠ থেকে ৩-০ গোলে হেরে আসায় কাল লিভারপুলের দরকার ছিল অন্তত ৪-০ গোলের জয়। ভাগ্য দেবতার অদৃশ্য কৃপায় অলরেডরা কাল সেই অসম্ভবকেই সম্ভব করেছে।

বিশ্বসেরা বার্সেলোনাকে ৪-০ গোলে বিধ্বস্ত করে টানা দ্বিতীয়বারের মতো চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে উঠল লিভারপুল। বিস্ময়কর হলো, লিভারপুল অবিশ্বাস্য এই কাণ্ডটা আবার ঘটিয়েছে দলের আক্রমণভাগের সেরা দুই অস্ত্র মোহামেদ সালাহ ও রবার্তো ফিরমিনোকে ছাড়াই! সালাহ-ফিরমিনো খেলতে পারলে মেসি-সুয়ারেজদের বার্সার অবস্থা যে কি হতো!
কি হতো, সেটা কল্পনা করার দরকার নেই। অ্যানফিল্ডে যা হয়েছে, সেটিই বার্সেলোনার উঁচু মাথা নিচু করে দিয়েছে! কেড়ে নিয়েছে মেসিদের ‘ট্রেবল’ জয়ের স্বপ্ন।

চোটের কারণে সালাহ নেই, ফিরমিনো নেই। সেরা দুই ফরোয়ার্ডকে হারিয়ে লিভারপুল কোচ ইয়ুর্গেন ক্লপের জন্য আক্রমণভাগ গড়াটাই হয়ে পড়েছিল দুরূহ ব্যাপার। সেই জোড়াতালির আক্রমণভাগই লিখল প্রত্যাবর্তনের অবিশ্বাস্য গল্প।

ভুল! কোনো ফরোয়ার্ড নন, কাল রাতে লিভারপুলের রূপকথার গল্পের মূল নায়ক ডাচ মিডফিল্ডার জর্জিনিও ইমেলে উইজিনালডাম। মেসিদের কাঁদিয়ে এই ডাচ মিডফিল্ডার করেছেন জোড়া গোল। আরেক মিডফিল্ডার জর্ডান ব্রায়ান হেন্ডারসনও করেছেন একটি গোল। মানে ৪ গোলের ৩টিই মিডফিল্ডারদের পা ছুঁয়ে। ফরোয়ার্ডদের প্রতিনিধি হয়ে একমাত্র গোলটা করেছেন ডিভক অরিগি।

এক অর্থে ২৪ বছর বয়সী এই বেলজিয়ান তরুণই মূল নায়ক। ইমেলে উইজিনালডাম ও হেন্ডারসনের জাদুতে ৩-০ হওয়ার পর বেলজিয়ান এই তরুণের গোলটিই নিশ্চিত করেছে লিভারপুলের ফাইনাল। মেসি এবং তার বার্সেলোনার হাতে ধরিয়ে দিয়ে শূন্য হাতে বাড়ি ফেরার টিকিট।

গত বুধবার ন্যু-ক্যাম্পে বার্সার সঙ্গে পাল্লা দিয়েই লড়াই করেছে লিভারপুল। কিন্তু সেদিন ভাগ্য তাদের সহায় ছিল না। একের পর এক সুযোগ মিস করেন সালাহ, সাদিও মানেরা। কাল অ্যানফিল্ডে লিভারপুল ভাগ্যের সহায়তা পেয়ে যায় ম্যাচের ৭ মিনিটেই। ডিভক অরিগির শট বার্সেলোনার গোলরক্ষক মার্ক-আন্দ্রে তের স্টেগান ঠেকিয়ে দিলেও বল বাউন্ড খেয়ে এসে পড়ে হেন্ডারসনের পায়ে। ইংলিশ মিডফিল্ডার বল জালে জড়াতে ভুল করেননি।

Loading...

Check Also

অবশেষে দল পেলেন মাশরাফি, খেলবেন ঢাকায়

ক্রীড়া ডেস্ক, ঢাকা প্রতিদিন.কম : বাংলাদেশের অন্যতম সফল অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজাকে অবশেষে দলে নিল ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *