Home / খেলাধুলা / প্রধানমন্ত্রীর দোয়া ও শুভকামনা বড় অনুপ্রেরণা : নান্নু

প্রধানমন্ত্রীর দোয়া ও শুভকামনা বড় অনুপ্রেরণা : নান্নু

ক্রীড়া ডেস্ক

ক্রিকেটের প্রতি বাংলাদেশের মানুষের আবেগ স্বাভাবিকের চেয়েও অনেক বেশি। যা কিনা প্রায়শই ছুঁয়ে যায় সাধারণ নাগরিক থেকে শুরু করে দেশের শীর্ষস্থানীয় ব্যক্তিত্বদের পর্যন্ত। যার ব্যতিক্রম নন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও। তাই তো বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের যেকোনো বিদেশ সফর কিংবা বড় মিশনের আগে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা ব্যক্তিগতভাবে দেখা করে থাকেন ক্রিকেটারদের সঙ্গে। কুশলাদি বিনিময়ের পাশাপাশি সাহস দেয়া এবং অনুপ্রেরণা জুগিয়ে থাকেন সাগ্রহে।
সে ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ জাতীয় দল আগামীকাল (বুধবার) দেশ ছাড়ার আগে মঙ্গলবার তাদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী। বেলা সাড়ে ১২টা থেকে প্রায় দুই ঘণ্টা গণভবনে ছিলেন জাতীয় দলের সদস্যরা।
এ সাক্ষাতের পর আবেগাপ্লুত দলের প্রধান নির্বাচক ও আয়ারল্যান্ড সফরে ম্যানেজার মিনহাজুল আবেদিন নান্নু। তাৎক্ষনিক প্রক্রিয়ায় আবেগমাখা কণ্ঠে তিনি অলেন, ‘আপা (মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা) সবসময়ই আমাদের বড় অনুপ্রেরণা।’

তিনি আরও বলেন, ‘সেই খেলোয়াড়ি জীবন থেকে দেখে আসছি কোনো বিদেশ সফর কিংবা বড় মিশনের আগে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমাদের অনুপ্রাণিত করেন, সাহস জোগান এবং দেশমাতৃকার জন্য সামর্থ্যের সবটুকু ঢেলে দিতে জোর তাগিদও দেন। আজ বারবার মনে পড়ছে সেই ১৯৯৭ সালের আইসিসি ট্রফি খেলতে যাওয়ার দিনটির আগের কথা। স্মৃতিপটে ভেসে উঠছে প্রথম বিশ্বকাপ খেলতে যাওয়ার আগে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাতের স্মৃতি।’

বলতে বলতে যেনো স্মৃতির পাতায় হারিয়ে যান নান্নু, ‘খুব মনে পড়ছে ১৯৯৭ সালে আইসিসি ট্রফি এবং ১৯৯৯ সালের বিশ্বকাপে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দোয়া নিয়েই সফল হয়েছিলাম। ‘৯৭ সালে আইসিসি ট্রফি জিতে তার সঙ্গে হাসিমুখে দেখা করেছিলাম। আর ‘৯৯ সালে প্রথম বিশ্বকাপ খেলতে গিয়ে পাকিস্তান ও স্কটল্যান্ডকে হারানোর সুখস্মৃতি নিয়েই প্রধানমন্ত্রীর সাথে আবার দেখা হয়েছিল তার সঙ্গে।’

Loading...

Check Also

তারা চাইলেই মাঠের বাইরে বল পাঠাতে পারে: ডোমিঙ্গো

ক্রীড়া ডেস্ক, ঢাকা প্রতিদিন.কম : বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের প্রধান কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো বলেছেন, আমরা কখনও ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *