Home / অর্থ-বাণিজ্য / মজুরি কাঠামো পর্যালোচনায় কমিটি, শ্রমিকদের কাজে ফেরার আহ্বান

মজুরি কাঠামো পর্যালোচনায় কমিটি, শ্রমিকদের কাজে ফেরার আহ্বান

নিজস্ব প্রতিবেদক : দ্বায়িত্ব নিয়ে কর্মদিবসের প্রথম দিনেই নতুন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, তৈরি পোশাক শিল্পের অস্থিতিশীল পরিস্থিতি বিবেচনায় সদ্য বাস্তবায়নাধীন মজুরি কাঠামো পর্যালোচনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এক মাসের মধ্যেই মজুরি কাঠামো পর্যালোচনা করে নতুন সিদ্ধান্ত জানানো হবে। আজ মঙ্গলবার মতিঝিলের শ্রমভবনে মালিক, শ্রমিক সংগঠনের প্রতিনিধি ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের নিয়ে প্রায় দুই ঘণ্টার বৈঠক শেষে তিনি এসব কথা বলেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন শ্রম প্রতিমন্ত্রী বেগম মুন্নুজান সুফিয়ানসহ তৈরি পোশাক শিল্পের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, মালিক পক্ষের ৫ জন, শ্রমিক পক্ষের ৫ জন এবং সরকারের বাণিজ্য সচিব ও শ্রম সচিবকে নিয়ে মোট ১২ সদস্যের কমিটি করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এ কমিটি আগামী এক মাসের মধ্যে মজুরির অসঙ্গতিগুলো খতিয়ে দেখবে এবং সমস্যা সমাধানে পদক্ষেপ নেবে। তিনি বলেন, মজুরি নিয়ে কোনো সমস্যা থাকলে তা আলোচনা করে এক মাসের মধ্যেই সমাধান করা হবে। এসময়ের মধ্যে শ্রমিকদের রাস্তায় বিশৃঙ্খলা না করে কাজে ফিরে যাওয়ার আহ্বানও জানান নতুন এ বাণিজ্যমন্ত্রী। জানুয়ারি মাসে কোনো শ্রমিককে কম বেতন দেয়া হবে না। কোনো গ্রেডে কারো যদি বেতন কমে যায়, তবে সেটা হিসাব করে সমন্বয় করা হবে। বকেয়া আকারে শ্রমিকরা সেই বেতন পেয়ে যাবেন বলে জানান টিপু মুনশি। তিনি বলেন, বর্তমান শ্রমিক আন্দোলনের পেছনে শিল্পের বাইরের লোকের ইন্ধন রয়েছে বলে সন্দেহ করা হচ্ছে।

টিপু মুনশি বলেন, শ্রমিকদের বিভ্রান্ত করা হচ্ছে। শ্রমিকরা যাতে কোনো রকম গুজব কিংবা উস্কানিতে পা না দেন আমরা সেই অনুরোধ করছি। আজকের পর থেকে ইন্ডাস্ট্রিবিরোধী কোনো কর্মকাণ্ড করলে তা কঠোর হাতে দমন করা হবে। তিনি আরো বলেন, যারা ধ্বংসাত্মক কাজ করেছে তারা শ্রমিক না। তারা এ ট্রেডের বন্ধু না। তাদের কঠোর হাতে দমন করতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। মালিক ও শ্রমিক একটা বাইসাইকেলের দুই চাকা। তাদের এক সঙ্গেই এগোতে হবে। কোথায় কোনো ইরেগুলারিটি থাকালে সেটা দেখা হবে। কিন্তু কোনো ধরনের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড সহ্য করা হবে না। সাইবার ক্রাইম শুরু হয়ে গেছে। বিভিন্ন রকম প্রচারপত্র লিফলেট বিতরণ করা হচ্ছে অনলাইনে। আমরা বরাবর দেখেছি, প্রত্যেক ঘটনার ক্ষেত্রে এ ধরনের অপকর্ম ঘটছে। এসব কর্মকাণ্ড সম্পর্কে সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে বলেও জানান বাণিজ্যমন্ত্রী।

শ্রম প্রতিমন্ত্রী মুন্নুজান বলেন, প্রধানমন্ত্রী অত্যন্ত শ্রমিকবান্ধব। তিনি নিজেই সুপারিশ করে পোশাক শ্রমিকদের মজুরি বাড়ানোর ব্যবস্থা করেছেন। এখন নতুন মজুরি কাঠামোর কোথাও কোনো অসুবিধা থাকলে আলোচনা করে তা ঠিক করার সিদ্ধান্ত হয়েছে। তাই আর কোনো বিশৃঙ্খলা নয়। সবাইকে কাজে ফিরে যাওয়ার অনুরোধ করছি। বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের কাছে একই কথা বলেন বাংলাদেশ টেক্সটাইল গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি মাহবুবুর রহমান ইসমাইল ও জাতীয় গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি আমিরুল হক আমিন। বৈঠকে আরো উপস্থিত ছিলেন- বিজিএমইএ সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান, এফবিসিসিআই সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন, বিজিএমইএ নেতা আব্দুস সালাম মুর্শেদী, ডিএমপি কমিশনার আসাদুজ্জামান মিয়াসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

প্রসঙ্গত, সরকারি মজুরি কাঠামো বাস্তবায়ন ও বেতন বাড়ানোর দাবিতে গত রোববার (৫ জানুয়ারি) থেকে টানা তিনদিন সাভারের হেমায়েতপুর শিল্পাঞ্চল এলাকা, গাজীপুরের টঙ্গী-আব্দুল্লাহপুর এলাকা, রাজধানীর উত্তরা, উত্তরখান-দক্ষিণখান, বিমানবন্দর ও পল্লবীর কালশীতে বিক্ষোভ এবং রাস্তা অবরোধ করে আসছিলেন পোশাক শ্রমিকরা। আজ মঙ্গলবারও সকাল থেকে এসব এলাকায় তৈরি পোশাক কারখানার শ্রমিকরা রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ-অবরোধ-ভাঙচুর করে। দুপুরের পর থেকে কয়েক দফায় উত্তরার আজমপুর, দক্ষিণখান এলাকায় পুলিশের সঙ্গে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার পর বিকেল পৌনে ৫টায় এলাকা ছাড়তে শুরু করেন পোশাক শ্রমিকরা।

ঢাকা প্রতিদিন ডটকম/০৮ জানুয়ারি/এসকে

Loading...

Check Also

শচিনকে ছাড়িয়ে ১১ হাজারি ক্লাবে দ্রুততম কোহলি

ক্রীড়া ডেস্ক, ঢাকা প্রতিদিন.কম ১৭ জুন : পাকিস্তানের বিপক্ষে ৬৫ বল থেকে ৭৭ রান করেছেন ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *