Breaking News
Home / আন্তর্জাতিক / আস্থা ভোটে টিকে গেলেন থেরেসা মে

আস্থা ভোটে টিকে গেলেন থেরেসা মে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ঢাকা প্রতিদিন.কম ১৪ ডিসেম্বর : ব্রিটেনের কনজারভেটিভ দলের নেতৃত্বের প্রশ্নে আস্থা ভোটে আরো অন্তত এক বছরের জন্যে টিকে গেলেন থেরেসা মে। বুধবার রাতে ভোটাভুটিতে তাঁর পক্ষে পড়েছে ২০০ ভোট আর বিপক্ষে ১১৭।

আস্থা ভোটে মে জিতেছেন ৮৩ ভোটে। যার অর্থ ৬৩ শতাংশ কনজারভেটিভ এমপি ছিল তার পক্ষে আর বিপক্ষে ভোট দিয়েছে ৩৭ শতাংশ। হেরে গেলে দলের প্রধান ও প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে তাঁকে সরে যেতে হতো। খবর বিবিসির।

জয়ের পর থেরেসা মে বলেন, ‘এটি খুব দীর্ঘ এবং উত্তেজনাপূর্ণ দিন ছিল। তবে দিন শেষে আমি আমার সহকর্মীদের ধন্যবাদ দেবো ব্যালটের মাধ্যমে আমাকে সমর্থন জানানোর জন্যে, আমি তাদের প্রতি কৃতজ্ঞ।’

বক্তব্যের এক পর্যায়ে নিজ দলের এই সমর্থন তাকে ব্রেক্সিট নীতি বাস্তবায়নে সহায়তা করবে বলে জানান থেরেসা মে।

এর আগে ডাউনিং স্ট্রিটে এক বক্তব্য ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন, তিনি ‘জনগণের দেয়া ভোটে নির্ধারিত ব্রেক্সিট’ রক্ষায় প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

সংসদে আস্থা ভোটের ডাক দেবার জন্যে দরকার ছিল ৪৮ জন কনজারভেটিভ পার্টির সংসদ সদস্যের আবেদন। এই একই সংখ্যক সদস্য ২০১৬ সালে ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে আলাদা হয়ে যাওয়ার পক্ষে গণভোটের রায়ের ওপর তৈরি মে’র ব্রেক্সিট নীতিতে রাগান্বিত হয়ে অনাস্থা আবেদন দেন।

অনাস্থা প্রস্তাব আনা এমপিদের নেতৃত্বে থাকা সংসদ সদস্য জ্যাকব রেস-মগ এই ফলাফলকে প্রধানমন্ত্রীর জন্যে ভয়াবহ বলে উল্লেখ করেছেন। তিনি মে’কে পদত্যাগের আহ্বান জানান। বিপক্ষে থাকা আরেক এমপি এন্ড্রু ব্রিজেনের মতে, এটি নতুন একজন প্রধানমন্ত্রী মাধ্যমে নতুন করে ব্রেক্সিট আলোচনার বড় সুযোগ হাতছাড়া হলো।

তবে সাবেক মন্ত্রী ডেমিয়েন গ্রিন একে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর ‘নিষ্পত্তিমূলক’ বিজয় বলে উল্লেখ করেছেন।

ব্রেক্সিট নিয়ে ইউরোপীয় ইউনিয়নের সঙ্গে একটি খসড়া চুক্তিতে পৌছছেন থেরেসা মে। কিন্তু তাতে সন্তুষ্ট নন নিজ দলের অনেক এমপি। ব্যাক বেঞ্চ এমপি স্যার গ্রাহাম ব্র্যাডি যখন আস্থা ভোটের ফল ঘোষণা করেন, তখন টোরি এমপিরা উল্লাস করে একে গ্রহণ করে নেয়।

তবে এখনো ইউরোপীয় ইউনিয়নের সঙ্গে ব্রেক্সিট চুক্তি বাস্তবায়নে থেরেসা মেকে সংসদে তার বিরোধীদলসহ নিজ দলের কয়েক ডজন সদস্যের সাথে বড় ধরনের চ্যালেঞ্জের মোকাবেলা করতে হবে।

ঢাকা প্রতিদিন.কম/এআর

Loading...

Check Also

প্রবাসীদের হয়রানির বন্ধে কাজ করছে সরকার : এনামুল হক শামীম

মক্কা (সৌদি আরব) প্রতিনিধি প্রবাসীরা দেশে আসার পর বিমানবন্দরসহ কোন স্থানে যেন হয়রানির শিকার না ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *