Home / জাতীয় / বাংলাদেশের শিক্ষাব্যবস্থাকে অনুসরণ করতে চায় পাকিস্তান: শিক্ষামন্ত্রী

বাংলাদেশের শিক্ষাব্যবস্থাকে অনুসরণ করতে চায় পাকিস্তান: শিক্ষামন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
পাকিস্তানের নতুন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান দায়িত্ব নেয়ার পর বলেছেন, আগামী ৫ বছরের মধ্যে দেশটির শিক্ষাব্যবস্থা সুইডেনের মানে উন্নীত করবেন। তার এ পরিকল্পনার জবাবে পাকিস্তানের বিশেষজ্ঞরা ইমরান খানকে বলেছেন, ৫ বছর নয় প্রয়োজনে ১০ বছর সময় নিন, শিক্ষাব্যবস্থাকে বাংলাদেশের মানে উন্নীত করুন।
দেশের শিক্ষাব্যবস্থার মানের প্রশংসা করতে গিয়ে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ গতকাল শুক্রবার সকালে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিআরইউ) কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা ও বৃত্তিপ্রদান অনুষ্ঠানে একথা বলেন।
ডিআরইউর সদস্যদের মধ্যে যাদের সন্তান ২০১৮ সালের মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) ও উচ্চ মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এইচএসসি) পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হয়েছে তাদেরকে প্রতি বছরের মতো এবারও সংবর্ধনা দেয়া হয়। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানটি ডিআরইউ’র গোলটেবিল মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়।
ডিআরইউ সভাপতি সাইফুল ইসলামের সভাপতিত্বে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি এবং এসবিএসি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও নির্বাহী কর্মকর্তা মো. গোলাম ফারুক বিশেষ অতিথি ছিলেন।
জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রার (এসজিডি) ৪ নম্বর ধারা অনুযায়ী শিক্ষারমানের প্রতি সরকারের মনোযোগ রয়েছে উল্লেখ করে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, বর্তমান এবং আগামী দিনের প্রজন্মকে মানসম্মত শিক্ষার মাধ্যমে ভালো মানুষ হিসেবে গড়ে তোলাই বর্তমান সরকারের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য।
শিক্ষাব্যবস্থায় কোনো ভুল বা ত্রুটি থাকলে তা ধরিয়ে দেয়ার আহ্বান জানিয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ভুল হলে বলবেন, আমরা তা স্বাগত জানাই। কেননা আমরা মানসম্মত শিক্ষাব্যবস্থা গড়তে চাই। আমরা এগিয়ে যেতে চাই, তাই সবার সহযোগিতা প্রয়োজন।
তিনি বলেন, আমি প্রার্থনা করি যে, বর্তমান এবং আগামী প্রজন্ম আরো বড় হোক, আমাদেরকে ছাড়িয়ে যাক।
এবার এসএসসি পরীক্ষায় জিপিও-৫ পেয়ে উত্তীর্ণ ১৭ জন এবং এইচএসসিতে উত্তীর্ণ ৬ জনকে সংবর্ধনা দেয়া হয়। প্রতি শিক্ষার্থীকে একটি ক্রেস্ট, একটি সনদ এবং তিন হাজার করে টাকা দেয়া হয়।

শিক্ষামন্ত্রীর কাছ থেকে ক্রেষ্ট গ্রহন করছে ঢাকা প্রতিদিনের নির্বাহী সম্পাদক সাব্বির মাহমুদের ছেলে শিফাত মাহমুদ

এবার এসএসসি পরীক্ষায় জিপিও-৫ পেয়ে উত্তীর্ণ ১৭ জন এবং এইচএসসিতে উত্তীর্ণ ৬ জনকে সংবর্ধনা দেয়া হয়। প্রতি শিক্ষার্থীকে একটি ক্রেস্ট, একটি সনদ এবং তিন হাজার করে টাকা দেয়া হয়।
সংবর্ধিত শিক্ষার্থীরা হলো, শাহেদ চৌধুরীর কন্যা আতিয়া ফাইরোজ চৌধুরী, সাব্বির মাহমুদের পুত্র শিফাত মাহমুদ, মাহমুদুল হাসান শামীমের কন্যা মেহজাবিন হাসান ঐশী, দৌলত আক্তার মালার কন্যা মাশিয়াত খালিদ প্রাপ্তি, জামাল উদ্দিনের পুত্র আহমেদ রবিউল, রফিকুল ইসলামের কন্যা লামিয়া ইসলাম মিম, এম. ওমর ফারুকের কন্যা ফারিহা ওমর ইরা, এএফএম হুমায়ূন কবির ভূইয়ার পুত্র সিয়াম তাহসিন ভূইয়া, তিমির লাল দত্তের পুত্র যুবরাজ দত্ত, এ. এম. শহিদুল আজমের পুত্র আশরাফুল আজম, শরিফুল ইসলামের পুত্র রাহাঙ্গীর সাদমান ইসলাম, এস. এম. কাওসার রহমানের পুত্র এস. এম. আকিব রহমান, ফজলুল হকের পুত্র ফয়সাল আহমেদ, কানাই চক্রবর্তীর পুত্র দেবাঞ্জন চক্রবর্তী, মোস্তফা কামালের পুত্র ইরফান সাদিক কাফি, আমানুর রহমানের কন্যা ফারহান আক্তার হাফসা ও আমিনুল হক মল্লিকের কন্যা আদিবা হক মল্লিক।
এইচএসসি পরীক্ষায় কৃতিত্বের জন্য সংবর্ধনা ও বৃত্তি প্রাপ্ত সদস্য সন্তানরা হলোÑ মাহমুদুল হাসান শামীমের কন্যা মাহবুবা হাসান হৃদি, মোস্তফা কামালের কন্যা তাসনিম জান্নাত রিফা, মোরশেদ নোমানের কন্যা তাসনুহা মাহনুর মোরশেদ প্রমী, এম. এম. কায়সারের কন্যা তাসফি কায়সার, আবুল কাশেমের পুত্র মুজাহিদুল ইসলাম শাহীন ও সুরাইয়া আক্তার মুন্নীর কন্যা তাবাসসুম মোস্তফা অথৈ।

Loading...

Check Also

ফের তাইজুলের ৫ উইকেট, ফলোঅনে জিম্বাবুয়ে!

ক্রীড়া ডেস্ক, ঢাকা প্রতিদিন.কম ১৪ নভেম্বর : সিলেট টেস্টে দুই ইনিংসে ১১ উইকেট নিয়েছিলেন তাইজুল ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *