Home / ফোকাস / খালেদা জিয়াকে আজ বিএসএমএমইউতে নেয়া হতে পারে

খালেদা জিয়াকে আজ বিএসএমএমইউতে নেয়া হতে পারে

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা প্রতিদিন.কম ১১ জুন : স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে আজ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) নেয়া হতে পারে। রোববারই তাকে হাসপাতালে নেয়া হচ্ছে বলে সরকারের পক্ষ থেকে ইঙ্গিত দেয়া হয়েছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তাকে নেয়া হয়নি।

রোববার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, খালেদা জিয়ার চিকিৎসার বিষয়ে সরকারের আন্তরিকতার কোনো ঘাটতি নেই। স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেন, খালেদা জিয়ার চিকিৎসার জন্য প্রয়োজনে নতুন করে মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হবে।

আর আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেন, খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থার বিষয়ে সরকার ‘কনসার্ন’ এবং তার মাইল্ড স্ট্রোক হয়েছে কি না, তা পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হবে।

তবে বিএনপি খালেদা জিয়াকে ইউনাইটেড হাসপাতালে নেয়ার দাবি জানিয়েছে। নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এদিন জরুরি সংবাদ সম্মেলনে সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, বিএসএমএমইউতে বিএনপি চেয়ারপারসনের যথাযথ চিকিৎসা হবে না। বিশেষায়িত হাসপাতালে চিকিৎসা না দিলে এবং তার বড় ধরনের ক্ষতি হলে এর দায় সরকারকেই নিতে হবে।

দুর্নীতির মামলায় দণ্ড নিয়ে ৭৩ বছর বয়সী খালেদা জিয়া চার মাস আগে কারাগারে যাওয়ার পর থেকে তার স্বাস্থ্য নিয়ে উদ্বেগ জানিয়ে আসছে বিএনপি। ৫ জুন তার ‘মাথা ঘুরে’ পড়ে যাওয়ার খবর শোনার পর থেকে এ নিয়ে তাদের উদ্বেগ বাড়ে। দলীয় নেত্রীর চিকিৎসার বিষয়ে সরকারের বিরুদ্ধে উদাসীনতার অভিযোগ তোলেন তারা।

শনিবার ব্যক্তিগত চার চিকিৎসক খালেদা জিয়াকে কারাগারে দেখে এসে বলেছিলেন, বিএনপি চেয়ারপারসনের ‘মাইল্ড স্ট্রোক’ হয়েছে বলে তাদের ধারণা। তারা তাকে ইউনাইটেড হাসপাতালে নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও চিকিৎসা করানোর সুপারিশ করেন।

এ নিয়ে রোববার সচিবালয়ে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি বলেন, খালেদা জিয়ার চিকিৎসার ব্যাপারে সরকার শতভাগ আন্তরিক। উনার ব্যক্তিগত ও কারা চিকিৎসকরা কিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষার কথা জানিয়েছেন, আমরা ব্যবস্থা করেছি। তাকে বিএসএমএমইউতে পরীক্ষা করানো হবে। আমরা রোববার দুপুরে নেয়ার পরামর্শ দিয়েছিলাম, কিন্তু ঠিক কখন খালেদা জিয়াকে পরীক্ষার জন্য নেয়া হবে, তা আইজি প্রিজন্স নির্ধারণ করবেন।

ভিন্ন প্রশ্নে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘তার মাইল্ড স্ট্রোকের বিষয়টি পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর বোঝা যাবে।’ ব্যক্তিগত চিকিৎসকদের সুপারিশ উপেক্ষা প্রসঙ্গে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘এখানে (বিএসএমএমইউ) বড় বড় চিকিৎসক ও গবেষক রয়েছেন। আর উনার ব্যক্তিগত চিকিৎসকরা তো রয়েছেনই। সুতরাং এখানেই চিকিৎসা হবে। এরপর অন্য কোনো সিদ্ধান্ত নিতে হলে তা চিকিৎসকদের পরামর্শ অনুযায়ী হবে।’

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপি চেয়ারপারসন কারাগারে হঠাৎ করেই অসুস্থতার কথা জানিয়েছিলেন। কারা ডাক্তার ও সিভিল সার্জন পরীক্ষা করে জানানোর পর আইজি প্রিজন্স তাৎক্ষণিকভাবে সিদ্ধান্ত নেন এবং আমাদের সঙ্গে পরামর্শ করেন। তার (খালেদা জিয়া) যে ব্যক্তিগত চিকিৎসক তাদের তিনি (আইজি প্রিজন) কারাগারে নিয়ে গিয়েছিলেন, তারা সবাই মিলে চেক করে আরও কিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষার কথা বলেন।’

এখন খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যের পরিস্থিতি কেমন? মন্ত্রী বলেন, ‘খুব ভালো আছেন। আইজি প্রিজন্স জানিয়েছেন, তার ব্লাড প্রেসার ঠিক রয়েছে। চলাফেরায়ও এখন পর্যন্ত কোনো অসুবিধা পরিলক্ষিত হয়নি।’

জেল কোডের চেয়েও বেশি চিকিৎসা সুবিধা -আইনমন্ত্রী : রোববার আইন মন্ত্রণালয়ের সামনে সচিবালয় প্রাঙ্গণে জেলা জজদের গাড়ি হস্তান্তর অনুষ্ঠানে আইনমন্ত্রী বলেন, ‘যেসব পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে সিদ্ধান্ত নিতে হয় যে মাইল্ড স্টোক হয়েছে কি না, সে ব্যাপারে তাকে বঙ্গবন্ধু মেডিকেল ইউনিভার্সিটিতে নিয়ে যাওয়া হবে বলে আমাকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানিয়েছেন।’

সাংবাদিকদের প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘জেলে থাকাকালে কেউ অসুস্থ হলে জেল কোড অনুযায়ী তার চিকিৎসা হয়। এক্ষেত্রে খালেদা জিয়াকে জেল কোডের চেয়েও বেশি চিকিৎসা সুবিধা দেয়া হবে।’ মন্ত্রী অনুষ্ঠানে জেলা জজ ও সমপর্যায়ের ৫ জন বিচারককে ৫টি সিডান কার এবং ঢাকা জেলা জজশিপে একটি মাইক্রোবাসের চাবি হস্তান্তর করেন।

জেল কোডের বাইরে যাওয়া সম্ভব নয় -স্বাস্থ্যমন্ত্রী : রাজধানীর অফিসার্স ক্লাবে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের ইফতার মাহফিলে প্রধান অতিথি ছিলেন মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম।

তিনি বলেন, খালেদা জিয়া একজন সাবেক প্রধানমন্ত্রী, একজন রাজনীতিবিদ, একটি দলের চেয়ারপারসন ও বয়স্ক নারী। তার প্রতি সবসময়ই আমাদের সদয় দৃষ্টিভঙ্গি আছে। তার চিকিৎসার ব্যাপারে আমরা যথেষ্ট সচেতন আছি। অত্যন্ত গুরুত্ব দিয়ে, মর্যাদার সঙ্গে তার চিকিৎসা ব্যবস্থা করা হচ্ছে। এ নিয়ে বিএনপি নেতাদের মিথ্যাচার না করারও আহ্বান জানান তিনি।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, খালেদা জিয়ার সর্বোত্তম চিকিৎসাসেবা করা হচ্ছে এবং করা হবে। তার যে কোনো অসুবিধা দেখা হবে। তবে জেল কোডের বাইরে গিয়ে চিকিৎসা করা সম্ভব নয়। আমরা আশ্বস্ত করতে চাই, খালেদা জিয়ার চিকিৎসা নিয়ে কোনো অবহেলা করা হচ্ছে না। করার প্রশ্নই ওঠে না।

স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে ছিলেন স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব সিরাজুল হক খান, পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের সচিব ফয়েজ আহমেদ, বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের সভাপতি অধ্যাপক ডা. এম ইকবাল আর্সলান প্রমুখ।

বিএনপির সংবাদ সম্মেলন : রিজভী বলেন, পিজিতে (বিএসএমএমইউ) উনার যে চিকিৎসা, সেই চিকিৎসার ব্যাপারে খালেদা জিয়া সন্তুষ্ট নন। সেখানে তার যথাযথ চিকিৎসা হবে না, সেখানে তিনি চিকিৎসা করাতে চান না, সেখানে তিনি চিকিৎসা নেবেন না। আমরা মনে করি, পিজিতে তার যথাযথ চিকিৎসা হবে না। দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য আমরা আবারও আহ্বান জানাচ্ছি।

রিভজী বলেন, আমরা বলেছি বিশেষায়িত হাসপাতাল ইউনাইটেডে তিনি দীর্ঘদিন চিকিৎসা করাতেন, সেখানে চিকিৎসকরা তার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করতেন, সেখানেই তিনি চিকিৎসা করাতে চান, সেখানেই করা দরকার। এই হাসপাতালে আধুনিক ও উন্নতমানের যন্ত্রপাতি রয়েছে। তার যে শারীরিক অসুস্থতা, সেটা নিরীক্ষা করার জন্য সেসব যন্ত্রপাতি অত্যন্ত নির্ভুল হবে।

রিজভী বলেন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, ‘কারাগারে খালেদা জিয়া যে পড়ে গিয়েছিলেন সেই সম্পর্কে কারা কর্তৃপক্ষ অবগত নয়।’ আসলে খালেদা জিয়ার চিকিৎসা ও অসুস্থতা নিয়ে কতটা অবহেলা করা হচ্ছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যে সেটা পরিষ্কার হয়ে গেল। দেশনেত্রী কারাগারে অজ্ঞান হয়ে ৫-৭ মিনিট পড়ে ছিলেন অথচ সেটি কারা কর্তৃপক্ষ জানে না। কারা কর্তৃপক্ষ সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী কাজ করছে বলেই তার গুরুতর অসুস্থতার বিষয়ে ভ্রূক্ষেপহীন থেকেছে- সেটিই প্রমাণিত হল।

রিজভী বলেন, দেশনেত্রীর সঙ্গে শনিবার সাক্ষাৎ শেষে তার ব্যক্তিগত চিকিৎসকরা যে বর্ণনা দিয়েছেন, তা বেদনাদায়ক। তারা বলেছেন, ৫ জুন দেশনেত্রী মাথা ঘুরে পড়ে গিয়েছিলেন। ৫-৭ মিনিট তিনি অজ্ঞান ছিলেন। বর্তমানে তার যে শারীরিক অবস্থা, তাতে দ্রুত চিকিৎসা না দিলে তার বড় ধরনের ক্ষতি হয়ে যেতে পারে। আমরা বারবার তার সুচিকিৎসার দাবি জানিয়ে আসছি। চিকিৎসকরাও সুচিকিৎসার পরামর্শ দিয়ে আসছেন। কিন্তু কারা কর্তৃপক্ষ ও সরকারের পক্ষ থেকে কোনো পদক্ষেপ নেই, প্রতিকার নেই। সরকারের এহেন নির্মম আচরণের আমরা ধিক্কার জানাই।

রিজভী দেশবাসীসহ দলের নেতাকর্মীকে দেশনেত্রীর শারীরিক অসুস্থতা নিয়ে সরকারের ষড়যন্ত্রের বিষয়ে সজাগ দৃষ্টি রাখার আহ্বান জানান। অবিলম্বে তার মুক্তি ও সুচিকিৎসার ব্যবস্থা নেয়া না হলে রাজপথ অগণিত মানুষের স্লোগানে মুখরিত হবে বলে হুশিয়ারি দেন। সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা তৈমুর আলম খন্দকার, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, কেন্দ্রীয় নেতা অ্যাডভোকেট আবদুস সালাম আজাদ, তাইফুল ইসলাম টিপু, বেলাল আহমেদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

ঢাকা প্রতিদিন.কম/এআর

Loading...

Check Also

তারেক রহমান যে ব্রিটিশ নাগরিক, সরকার তা প্রমাণ করেছে

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা প্রতিদিন.কম ২৫ জুন : পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম বলেছেন, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *