Home / জেলার খবর / সাভারে কাউন্সিলর-ছাত্রলীগ গ্রুপের সংর্ঘষ-গোলাগুলিতে আহত ২০

সাভারে কাউন্সিলর-ছাত্রলীগ গ্রুপের সংর্ঘষ-গোলাগুলিতে আহত ২০

সাভার প্রতিনিধি : রাজধানীর পার্শ্ববর্তী সাভারে চাঁদা আদায়কে কেন্দ্র করে স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর- ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষ ও গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। সংঘর্ষ চলাকালে কাউন্সিলর গ্রুপের কর্মীরা ছাত্রলীগের ৫টি মোটরসাইকেলে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে। সংঘর্ষের ঘটনায় উভয় গ্রুপের অন্তত ২০ জন আহত হয়েছে। গুরুতর আহতদের উদ্ধার করে স্থানীয় বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনার পর থেকে এলাকায় চরম উত্তেজনা ও থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন ও টহল ব্যবস্থা বাড়ানো হয়েছে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, গতকাল রোববার দিবাগত রাত সাড়ে ১০টার দিকে সাভার পৌর এলাকার কাতলাপুর মহল্লার ৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুস সাত্তারের বাড়ির সামনে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানায়, সাভারের ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের পাশের ফুটপাতে সওজের জমিতে স্থানীয় বেশকিছু লোক ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে। তবে গত ১৫/২০ দিন ধরে ছাত্রলীগ নেতা টিপু ওই জমি পৌরসভার কাছ থেকে ইজারা নিয়েছে দাবি করে ব্যবসায়ীদের কাছে ১০ থেকে ২০ হাজার টাকা করে চাঁদা দাবি করছে। একপর্যায়ে ব্যবসায়ীরা টাকা দিতে অপরাগতা প্রকাশ করলে তাদের বেশকিছু দোকান-পাট বন্ধ করে দিয়েছে ছাত্রলীগ নেতার লোকজন। এরপর থেকেই উলাইল বাসস্ট্যান্ড এলাকার ব্যবসায়ীদের সঙ্গে সাভার উপজেলা ছাত্রলীগ নেতাদের বিরোধ চলে আসছিল। এদিকে স্থানীয় ৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুস সাত্তার ও তার লোকজন ওই ব্যবসায়ীদের সমর্থন জানিয়ে ছাত্রলীগের সওজের জমিতে অবৈধ চাঁদা আদায়ের প্রতিবাদ করতে বলে ব্যবসায়ীদের। এর জের ধরে রোববার রাত দশটার দিকে সাভার উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি আতিক ও ছাত্রলীগ নেতা টিপুসহ প্রায় ৩০ জন নেতাকর্মী ১৫/২০টি মোটরসাইকেলে করে কাউন্সিলরের অফিসের সামনে হামলা চালায়। পাল্টা জবাবে কাউন্সিলরের লোকজনও হামলা চালালে উভয় পক্ষের মধ্যে শুরু হয়ে ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়া। এসময় দু’পক্ষের মধ্যে গুলি বিনিময় ও দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে উভয় পক্ষের ২০ জন আহত হয়। তাদের উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। খবর পেয়ে সাভার মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে।

এ ব্যাপারে সাভার উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আতিকুর রহমান জানান, তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে ছাত্রলীগের এক নেতার সাথে তর্কের জেরে কাউন্সিলর আব্দুস সাত্তার ও তার অনুসারীরা পূর্ব পরিকল্পিতভাবে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের ওপর অতর্কিত হামলা চালায়। ৫টি মোটরসাইকেলে আগুন দিয়েছে। তবে চাঁদাবাজিতে ছাত্রলীগের কোনো নেতাকর্মী জড়িত নয় বলে দাবি করেন ছাত্রলীগের ওই নেতা। এ ব্যাপারে কাউন্সিলর আব্দুস সাত্তারের সাথে যোগাযোগ করা হলে তার কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

এদিকে গতকাল এ রিপোর্ট লেখাপর্যন্ত সাভার মডেল থানায় যোগাযোগ করা হলে অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মহসিনুল কাদির বিষয়টি নিশ্চিত করে ঢাকা প্রতিদিনকে জানান, ঘটনার পরপরই খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন ও টহল জোরদার করা হয়েছে। তবে এখনো কোনো পক্ষই থানায় কোনো মামরা করেনি। কাউকে আটকও করা হয়নি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান মহসিনুল কাদির।

ঢাকা প্রতিদিন ডটকম/২১ মে/এসকে

Loading...

Check Also

মেঘনা থেকে লঞ্চ শ্রমিকের লাশ উদ্ধার

চাঁদপুর প্রতিনিধি : চাঁদপুরে নিখোঁজের ২দিন পর মেঘনা থেকে মো. সেলিম মিয়া (৩৫)নামে এক লঞ্চ ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *