Home / জাতীয় / গৃহকর্মীকে ভবন থেকে ফেলে হত্যার অভিযোগ

গৃহকর্মীকে ভবন থেকে ফেলে হত্যার অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজধানীর গুলশানের একটি ভবনের কার্নিস থেকে ধাক্কা দিয়ে রিতা (১৬) নামের এক গৃহকর্মীকে নিচে ফেলে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ময়নাতদন্তের জন্য পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠিয়েছে। তবে মালিকপক্ষ বলছে, বকা দেয়ার কারণে সে ভবন থেকে লাফিয়ে পড়ে আত্মহত্যা করেছে। পুলিশ বলছে, পাল্টাপাল্টি অভিযোগের বিষয়টি গুরুত্বের সাথে খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, আজ মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৭টায় স্থানীয়রা গুলশানের ১২২ নম্বর রোডের ২৮ নম্বর বাসার ২য় তলার বাহিরের অংশে গৃহকর্মী রিতার রক্তার লাশ পড়ে থাকতে দেখে থানায় জানায়। খবর পেয়ে সকাল সাড়ে ৮টায় পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে তার লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায়। জানা গেছে, নিহত রিতার গ্রামের বাড়ি নারায়াণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে। গুলশানের ওই বাড়ির বাসিন্দা মাহবুবুলের ফ্ল্যাটে ছোটবেলা থেকেই রিতা গৃহকর্মীর কাজ করে আসছিলো। তার মৃত্যুর খবরে হাসপাতালের মর্গে ছুটে যান স্বজন-পরিবার। এসময় তারা গৃহকর্তা পরিবারের বিরুদ্ধে গৃহকর্মী রিতাকে হত্যার অভিযোগ করেছেন। তারা বলেছেন, গৃহকর্মী রিতা ভবন থেকে পড়ে আত্মহত্যা করতে পারেনা। তাকে ভবনের কার্নিস থেকে ধাক্কা দিয়ে নিচে ফেলে হত্যা করা হয়েছে।

এদিকে গৃহকর্তা মাহবুবুল পুলিশকে জানিয়েছে, গতকাল সকালে কাজের বিষয়ে রিতাকে বকাঝকা দেয়ায় অভিমান করে তাদের সকলের অজান্তে ভবন থেকে লাফিয়ে পড়ে আত্মহত্যা করেছে।

আজ এ রিপোর্ট লেখাপর্যন্ত গুলশান থানায় যোগাযোগ করা হলে অফিসার ইনচার্জকে পাওয়া যায়নি। তবে থানার এসআই সাইফুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করে ঢাকা প্রতিদিনকে জানান, রিতার মৃত্যুর বিষয়টি হত্যা নাকি আত্মহত্যা তা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট হাতে পাওয়ার পর বিষয়টি জানা যাবে। তবে মৃত্যুর আগে রিতা ধর্ষিত হয়েছিলো কিনা এবং গৃহকর্মীর পরিবার হত্যার যে অভিযোগ তুলেছে ও গৃহকর্তার পরিবার আত্মহত্যার যে দাবি করেছে, তা গুরুত্বের সাথে খতিয়ে দেখা হচ্ছে। রিতার মৃত্যুর রহস্য উদঘাটনে ঘটনার তদন্ত চলছে বলেও জানান পুলিশের ওই কর্মকর্তা।

ঢাকা প্রতিদিন ডটকম/১৫ মে/এসকে

Loading...

Check Also

উন্নয়নের ধারা যেনো অব্যাহত থাকে: প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক : আগামী নির্বাচনে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে আবারও আওয়ামী লীগকে জনগণের সেবা করার ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *