Breaking News
Home / আন্তর্জাতিক / মিশন অ্যাকমপ্লিশড : ট্রাম্পের টুইট নিয়ে সমালোচনার ঝড়
মিশন অ্যাকমপ্লিশড : ট্রাম্পের টুইট নিয়ে সমালোচনার ঝড়

মিশন অ্যাকমপ্লিশড : ট্রাম্পের টুইট নিয়ে সমালোচনার ঝড়

ডেস্ক রিপোর্ট : যে দিকে দুই চোখ যাচ্ছে, শুধুই ধ্বংসস্তূপ। শতাধিক মার্কিন ক্ষেপণাস্ত্রের ধাক্কায় তাসের ঘরের মতো ভেঙে পড়া ঘর-বাড়ি। সিরিয়ার দামেস্ক ও তার আশেপাশের বেশ কিছু এলাকায় এখন শ্মশানের স্তব্ধতা। এর মধ্যেই টুইট করে নতুন বিতর্কের জন্ম দিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। গত শনিবার টুইট বার্তায় তিনি বলেছেন, মিশন অ্যাকমপ্লিশড, আমরা জিতেছি।

২০০৩ সালে ইরাক যুদ্ধ শুরু হতে না হতেই মিশন অ্যাকমপ্লিশড অর্থাৎ অভিযান সুষ্ঠুভাবে শেষ হয়েছে কথাটা বলে কিন্তু ঠকে গিয়েছিলেন তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জর্জ ডব্লিউ বুশ। মিশন শেষ হওয়ার আট বছর পরে ২০১১ সালে ইরাক থেকে সেনাবাহিনী সরাতে সক্ষম হয় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। তবে কি জর্জ বুশের কথা ধার করে তার মতোই ভুল করলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প? ট্রাম্পের এই টুইটের পরই ক্ষোভে ফেটে পড়ে সোশ্যাল মিডিয়া। তীব্র ভাষায় আক্রমণ করা হয় মার্কিন প্রেসিডেন্টকে। কেউ বলেন, একটা জায়গাকে ধ্বংস করে দেয়ার পর মিশন অ্যাকমপ্লিশড কথাটা শুনতে কিন্তু ভালো লাগল না। কেউ আবার বলেছেন, ইতিহাসের পুনরাবৃত্তি হলে সেটা কিন্তু প্রহসন হয়ে দাঁড়ায়। নিজের দেশে সমালোচনা সত্ত্বেও হোয়াইট হাউস কিন্তু নিজের অবস্থানে অনড়।

জাতিসংঘে মার্কিন দূত নিক্কি হ্যালি জানিয়েছেন, সিরিয়ায় বাশার আল আসাদের সরকার যদি সাধারণ মানুষজনের ওপর রাসায়নিক অস্ত্র প্রয়োগ বন্ধ না করে, তবে আবার হামলা চালানো হবে। ট্রাম্প প্রশাসনের অভিযোগ, সিরিয়ার বিদ্রোহীদের নিশ্চিহ্ন করার জন্য দুমা এলাকায় রাসায়নিক অস্ত্র প্রয়োগ করেছেন আসাদের সরকার। যারা মারা গিয়েছেন, তাদের মধ্যে নারী ও শিশুর সংখ্যাই বেশি। আসাদকে শিক্ষা দিতে মার্কিন সেনাবাহিনীর নেতৃত্বে একযোগে সিরিয়ায় ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় ব্রিটেন ও ফ্রান্স। এই হামলার তীব্র নিন্দা করে রাশিয়া।

আসাদের বিরুদ্ধে রাসায়নিক অস্ত্র প্রয়োগের কোনও প্রমাণ নেই বলে দাবি করে রাশিয়ার হুমকি, মার্কিন জোটের বিরুদ্ধে জাতিসংঘে অভিযোগ জানানো হবে। ভুল ধরিয়ে দিয়ে অনেকেই বলছেন, গণবিধ্বংসী অস্ত্র মজুতের অভিযোগে ইরাকে যুদ্ধ শুরু করেছিলেন সিনিয়র বুশ। কিন্তু পরে প্রমাণ হয়েছিল যে, তাদের হাতে সে রকম কোনও গণবিধ্বংসী অস্ত্র ছিল না। শুধুমাত্র সন্দেহের বশে ট্রাম্পও একই ভুল করে ফেললেন না তো? মার্কিন সোশ্যাল সাইটে কিন্ত ঘুরপাক খাচ্ছে এমনই প্রশ্ন। আর গোটা বিষয়টা নিয়ে মহাশক্তিধর দেশগুলো যেভাবে আড়াআড়ি দুই ভাগে ভাগ হয়ে যাচ্ছে, তার মধ্যে বিপদের ইঙ্গিত দেখতে পাচ্ছে বিশেষজ্ঞ মহল।

ঢাকা প্রতিদিন ডটকম/১৫ এপ্রিল/এসকে

Loading...

Check Also

এক হত্যার প্রতিশোধে ৩০০ হত্যা

ডেস্ক রিপোর্ট : ইন্দোনেশিয়ার পশ্চিম পাপুয়াতে এক ব্যক্তি কুমিরের আক্রমণে নিহত হয়। এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *